বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১২:৪৮ অপরাহ্ন

শিরোনাম
বাংলাদেশ উচ্চ বিদ্যালয়ে নবীন বরণ-জিপিএ ৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থী সংবর্ধনা রঙিন ফুলকপি চাষ করে জীবন রাঙাতে চায় ঝিনাইগাতীর শফিকুল  ১নং কেন্দুয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সাইফুল ইসলাম খান সোহেল সফলতার সাথে ইউনিয়নের উন্নয়নমূলক কাজ করে আজ প্রথম বছর পেরিয়ে দ্বিতীয় বছরে পদার্পণ হাজীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে বই বিতরণ কেন্দুয়া বাংলাদেশ উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দিলেন কেন্দুয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সাইফুল ইসলাম খান সোহেল কুটামনি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা নতুন বই পেয়ে উচ্ছ্বসিত কেন্দুয়া বাংলাদেশ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন বই বিতরন বকশীগঞ্জ আ.লীগ সভাপতির বাসায় দূর্ধষ ডাকাতি জামালপুরের মেষ্টা ইউনিয়নে বুদ্ধি প্রতিবন্ধীকে ধর্ষণ, ধর্ষক চাচা গ্রেপ্তার জামালপুরে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ৩২তম বার্ষিক সদস্য সভা অনুষ্ঠিত
এলপি গ্যাস শিল্পকে ধ্বংস করতে উঠেপড়ে লেগেছে তারা কারা?

এলপি গ্যাস শিল্পকে ধ্বংস করতে উঠেপড়ে লেগেছে তারা কারা?

আন্তর্জাতিক বাজারে যখন এলপি গ্যাসের দাম ঊর্ধ্বমুখী, তখন বাংলাদেশের বাজারে নতুন করে দাম কমানোর ঘোষণা দিয়েছে বিইআরসি। আন্তর্জাতিক বাজার পরিলক্ষণ করলে দেখা যায়, গত মে মাসে প্রতি টন প্রোপেনের দাম ছিল ৪৯৫ ডলার আর বিউটেনের ৪৭৫ ডলার। চলতি জুনে যা বেড়ে দাঁড়ায় যথাক্রমে প্রতি টন ৫৩০ ডলার ও ৫২৫ ডলার। গত মে মাসে বিইআরসি কর্তৃক প্রতি ১২ কেজি সিলিন্ডারের দাম নির্ধারণ করা হয় ৯২০ টাকা, সেখানে কি না জুনে দাম বেড়ে যাওয়ার পরও তা কমিয়ে নিয়ে আসা হয় ৮৪২ টাকায়।

আন্তর্জাতিক বাজারে যখন এলপি গ্যাসের দাম টনপ্রতি প্রায় ৪৫ ডলার বৃদ্ধি পেল, তখন বিইআরসি ১২ কেজি সিলিন্ডারে ৭৮ টাকা দাম কমিয়ে যেন এক ছেলেখেলা শুরু করেছে। সেই সঙ্গে আন্তর্জাতিক বাজারে দাম বেড়ে যাওয়ার পরও সিলিন্ডার প্রতি দাম কমে যাওয়া যেন এলপি গ্যাস ব্যবসায়ীদের জন্য এক অশনি বার্তাই বহন করছে।

২০১৩ সালে বাংলাদেশে এলপিজির চাহিদা ছিল মাত্র ৮০ হাজার মেট্রিক টন কিন্তু বর্তমানে তা ১২ লাখ মেট্রিক টন ছাড়িয়েছে। ধারণা করা হয়, ২০২৫ সালের মধ্যে ২৫ লাখ মেট্রিক টন এবং ২০৩০ সালের মধ্যে ৩০ লাখ ৫০ হাজার মেট্রিক টনে পৌঁছে যাবে। এখন পর্যন্ত এ খাতে বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে প্রায় ৩২ হাজার কোটি টাকা এবং এর সঙ্গে প্রত্যক্ষ কিংবা পরোক্ষভাবে জড়িত আছেন প্রায় ১০ লাখ মানুষ। এ বিশাল বিনিয়োগের অধিকাংশই এসেছে ব্যাংক ঋণ থেকে। বিইআরসির সঙ্গে প্রাথমিক আলোচনায় ও গণশুনানিতে বাংলাদেশের সব অপারেটর তাদের সকল প্রকার খরচ ও অন্যসব ব্যয় তুলে ধরেন। কিন্তু এ যেন এক ছেলেখেলা ছাড়া আর কিছুই নয়।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply




© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি।
Design & Developed BY SheraWeb.Com