শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩, ০৪:৪৪ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম
রঙিন ফুলকপি চাষ করে জীবন রাঙাতে চায় ঝিনাইগাতীর শফিকুল  ১নং কেন্দুয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সাইফুল ইসলাম খান সোহেল সফলতার সাথে ইউনিয়নের উন্নয়নমূলক কাজ করে আজ প্রথম বছর পেরিয়ে দ্বিতীয় বছরে পদার্পণ হাজীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে বই বিতরণ কেন্দুয়া বাংলাদেশ উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দিলেন কেন্দুয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সাইফুল ইসলাম খান সোহেল কুটামনি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা নতুন বই পেয়ে উচ্ছ্বসিত কেন্দুয়া বাংলাদেশ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন বই বিতরন বকশীগঞ্জ আ.লীগ সভাপতির বাসায় দূর্ধষ ডাকাতি জামালপুরের মেষ্টা ইউনিয়নে বুদ্ধি প্রতিবন্ধীকে ধর্ষণ, ধর্ষক চাচা গ্রেপ্তার জামালপুরে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ৩২তম বার্ষিক সদস্য সভা অনুষ্ঠিত কুটামনি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্র—ছাত্রীদের বিদায় অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত
নকলায় বিএডিসি বীজ আলুর ন্যায্য মূল্য পেতে সংবাদ সম্মেলন স্মারকলিপি প্রদান

নকলায় বিএডিসি বীজ আলুর ন্যায্য মূল্য পেতে সংবাদ সম্মেলন স্মারকলিপি প্রদান

আব্দুল্লাহ আল-আমিন, নকলা,(শেরপুর) প্রতিনিধি: শেরপুরের নকলায় বিএডিসি বীজ আলুর ন্যায্য মূল্য পাওয়ার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করার পাশাপাশি যথাযথ কর্তৃপক্ষের নিকট স্মারকলিপি প্রদান করেছেন বিএডিসির চুক্তি ভিত্তিক বীজ আলু চাষীরা।

১০ এপ্রিল শনিবার দুপুরে আলুচাষী শামীম আহম্মেদ, ছাইদুল হক, জুয়েল মিয়াসহ উপজেলার বিভিন্ন ব্লকের প্রায় অর্ধশত আলুচাষীরা উপস্থিত হয়ে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে উৎপাদন খরচ অনুপাতে ন্যায্য মূল্যের দাবি করে তারা বলেন, বিগত বছরের উৎপাদন খরচের তুলনায় এবছর একর প্রতি বীজ আলু উৎপাদন খরচ ৩৫হাজার থেকে ৪৫ হাজার টাকা বেশি হলেও সরকারি নির্ধারিত মূল্য কমানো হয় ফলে সরকার নির্ধারিত দামে প্রতি একরে প্রায় ৪৫ হাজার টাকা থেকে ৫০ হাজার টাকা লোকসান গুণতে হচ্ছে আলু চাষীদের।

এসময় অন্যান্যদের মাঝে,উপজেলা কৃষক লীগের আহবায়ক আলমগীর আজাদ, যুগ্ম আহবায়ক আব্দুল মন্নাফ খান, বিএডিসি আলু চাষীদের নেতা কামরুজ্জামান, জয়েন উদ্দিন, নূর ইসলম প্রমুখ
বক্তব্য রাখেন।

চাষীরা জানান, গত বছর প্রতি একরে বীজ আলু রোপন করতে হয়েছিলো ১৬ মণ থেকে ১৮ মণ। কিন্তু এবছর একর প্রতি বীজ আলু রোপন করতে হয়েছে ৩০ মণ। গতবছর চাষীদের কাছে বীজ আলুর দাম নেওয়া হয়েছিলো ভিত্তি বীজ ৩৪ টাকা থেকে ৩৬ টাকা এবং প্রত্যায়িত বীজের দাম নেওয়া হয়েছিলো ২৭ টাকা থেকে ২৮টাকা প্রতি কেজি। আর এবছর অন্যান্য ব্যয় বৃদ্ধির পাশাপাশি প্রতি কেজি ভিত্তি বীজ ৪০ টাকা থেকে ৪১ টাকা এবং প্রত্যায়িত বীজের দাম ধরা হয়েছে ৩৯ টাকা থেকে ৪০টাকা।

এতে বীজ আলু বাবদ বাড়তি ব্যয়ের পাশাপাশি শ্রমিক মজুরি বেড়েছে প্রতি জনে ৪০ টাকা থেকে ৬০ টাকা করে এবং জমি বন্ধকে ব্যয় বেড়েছে প্রতি একরে ২ থেকে ৩ হাজার টাকা। এহিসাব মতে প্রতি একর জমিতে বিএডিসির বীজ আলু চাষ করতে চাষীদের ব্যয় বেড়েছে প্রতি একরে ৩৫ হাজার থেকে ৪৫ হাজার টাকা।

তাই,এমতাবস্থায় আলুর সরকারি ভাবে ক্রয়মূল্য পুর্ননির্ধারন না করলে আগামীতে আলু চাষী খোঁজে পাওয়া যাবেনা বলে তারা মন্তব্য করে সরকারের নিতীনির্ধারকসহ বিএডিসি কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করেন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply




© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি।
Design & Developed BY SheraWeb.Com