বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১১:২৯ অপরাহ্ন

শিরোনাম
বাংলাদেশ উচ্চ বিদ্যালয়ে নবীন বরণ-জিপিএ ৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থী সংবর্ধনা রঙিন ফুলকপি চাষ করে জীবন রাঙাতে চায় ঝিনাইগাতীর শফিকুল  ১নং কেন্দুয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সাইফুল ইসলাম খান সোহেল সফলতার সাথে ইউনিয়নের উন্নয়নমূলক কাজ করে আজ প্রথম বছর পেরিয়ে দ্বিতীয় বছরে পদার্পণ হাজীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে বই বিতরণ কেন্দুয়া বাংলাদেশ উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দিলেন কেন্দুয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সাইফুল ইসলাম খান সোহেল কুটামনি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা নতুন বই পেয়ে উচ্ছ্বসিত কেন্দুয়া বাংলাদেশ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন বই বিতরন বকশীগঞ্জ আ.লীগ সভাপতির বাসায় দূর্ধষ ডাকাতি জামালপুরের মেষ্টা ইউনিয়নে বুদ্ধি প্রতিবন্ধীকে ধর্ষণ, ধর্ষক চাচা গ্রেপ্তার জামালপুরে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ৩২তম বার্ষিক সদস্য সভা অনুষ্ঠিত
বন্যায় ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে আবারো মৎস্য ও সবজি চাষে মনোনিবেশ করলেন উদ্যোক্তা তমাল

বন্যায় ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে আবারো মৎস্য ও সবজি চাষে মনোনিবেশ করলেন উদ্যোক্তা তমাল

মোঃ তরিকুল ইসলাম তারেক, ঝিনাইগাতী (শেরপুর) প্রতিনিধিঃ বন্যায় ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে আবারো মৎস্য ও সবজি চাষে মনোনিবেশ করলেন সাংবাদিক তারিফুল আলম তমাল। এই বছরে বন্যায় পুকুর তলিয়ে প্রায় ৪ লাখ টাকার মাছের ক্ষতিসাধিত হয়। ফলে বিপদ গস্ত হয়ে পরে সাংবাদিক তমাল। ঝিনাইগাতী উপজেলার হাতিবান্দা ইউনিয়নের কোনাপাড়া গ্রামের বাসিন্দা ও হাতিবান্দা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মরহুম নুরুল আমিন দোলার ছেলে। জানা গেছে, তমাল ব্যবসা ও সাংবাদিকতার পাশাপাশি ২০১৬ সালে ৩ একর জমিতে মৎস্য খামার গড়ে তুলেন। ২০২০ সালে প্রায় ৪ লাখ টাকার মাছ ছারেন তার প্রজেক্টের পুকুরে। কিন্তু এ বছরই পাহাড়ি ঢলের পানির তোড়ে পুকুর তলিয়ে মাছ ভেসে যায়। ফলে বিপদ গস্ত হয়ে পরে সাংবাদিক তমাল। মাছের এ অপুরনীয় ক্ষতি সাধিত হলেও সরকারিভাবে কোন সাহায্য সহযোগিতা মেলেনি সাংবাদিক তমালের ভাগ্যে। বন্যায় মাছের এ ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে ঋন ধার করে ২০২১ সালে আবারো মৎস্য ও সবজি চাষে মনোনিবেশ করেন নিজেকে। নতুন করে বিভিন্ন প্রজাতির প্রায় ৫ লাখ টাকার মাছ ছেরেছেন তার প্রজেক্টের পুকুরে। বর্তমানে সাংবাদিক তমাল মাছের প্রজেক্টে ব্যস্ত সময় পার করছেন। মাছের প্রজেক্টের পাশাপাশি পুকুরের পাড়ে লাগিয়েছেন মিষ্টি লাউ গাছ। প্রায় ৩ শত মিষ্টি লাউ গাছ রোপন করেন। ইতি মধ্যেই লাউ উঠতে শুরু করেছে। প্রথম বারের উত্তোলন করা লাউ বিক্রি করেছেন ৫ হাজার টাকা। তমাল জানান, ৫০/৬০ হাজার টাকার লাউ বিক্রি করতে পারবেন তিনি। তমাল আরো বলেন, পুকুর পারে লাউ গাছের পাশাপাশি হাইব্রিড জাতীয় পেঁপে চারা রোপণের পরিকল্পনা হাতে নিয়েছেন। তিনি প্রজেক্টের পুকুর পারে ২ হাজার পেঁপে চারা রোপণের কাজ শুরু করেছেন। বাড়ির চার পাশে রোপণ করেছেন বিভিন্ন প্রজাতির ফলের গাছ।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply




© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি।
Design & Developed BY SheraWeb.Com