ঢাকা February 24, 2024, 4:31 am
  1. Arts & EntertainmentCelebrities
  2. blog
  3. অন্যান্য
  4. অপরাধ
  5. আইন – আদালত
  6. আন্তর্জাতিক
  7. আবহাওয়া
  8. উপ-সম্পাদকীয়
  9. কবিতা
  10. কৃষি
  11. কৃষি ও কৃষক
  12. কৌতুক
  13. খেলা ধূলা
  14. খেলাধুলা
  15. গণমাধ্যম
আজকের সর্বশেষ সবখবর

শ্রীবরদীতে গৃহবধূ ধর্ষনের অভিযোগে আটক-৩

Admin
December 1, 2021 12:58 pm | 360 Views
Link Copied!

শ্রীবরদী (শেরপুর) প্রতিনিধি: শেরপুরের শ্রীবরদীতে গৃহবধূ (২০) কে গণধর্ষনের অভিযোগে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। গত ২৯ নভেম্বর রাতে উপজেলার খড়িয়াকাজির চর ইউনিয়নের লংগরপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে গণধর্ষনের ঘটনা ঘটে। অভিযোগের প্রেক্ষিতে ৩০ নভেম্বর মঙ্গলবার দিবাগত রাতে শ্রীবরদী থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে এজহার নামীয় ৩ জনকে আটক করেছে। আটককৃতরা হলো, লংগরপাড়া গ্রামের বাবুল মিয়ার ছেলে কামরুজ্জামান (২৩), দুদু মিয়ার ছেলে শফিকুল ইসলাম (২৭) ও জামালপুর সদরের দেউরপাড়া গ্রামের মৃত আব্দুল সেকের ছেলে আয়নাল হক (৫০)। আটককৃতদের ১ ডিসেম্বর বুধবার সকালে শেরপুর কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে।

 

 

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, কয়েক দিন আগে ওই গৃহবধূ উপজেলার উত্তর খড়িয়া গ্রামে বাবার বাড়িতে বেড়াতে আসেন। সেই সুবাধে বাড়ি পাশ্ববর্তী কামরুজ্জামান গৃহবধূর কাছ থেকে ১ হাজার টাকা ধার নেয়। গত সোমবার দুপুরে ওই গৃহবধূ কামরুজ্জামানের কাছে পাওনা টাকা ফেরত চায়। একই দিন সন্ধ্যার পর টাকা দেওয়ার কথা বলে কামরুজ্জামান গৃহবধূকে লঙ্গরপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে ডেকে নিয়ে যান। এসময় তার সহযোগি শফিকুল ইসলাম ওই বিদ্যালয়ে অবস্থান করছিল। সেখানে গেলে নৈশ প্রহরী আয়নাল হক বিদ্যালয়ের প্রধান ফটক খুলে দেন এবং ওই দুই যুবকের পরামর্শ অনুযায়ী গৃহবধূকে বিদ্যালয়ের চারতলা ভবনের একটি কক্ষে নিয়ে আটকে রাখেন। ওই দিন আনুমানিক রাত সাড়ে আটটার দিকে কামরুজ্জামান, শফিকুল ও নৈশ প্রহরী আয়নাল ওই গৃহবধুকে জোরপূর্বক গণধর্ষণ করেন। পরে গৃহবধূকে বিদ্যালয় থেকে বের করে দেন এবং ঘটনার কথা কাউকে না বলার জন্য হুমকি দেন। ভুক্তভোগী বাড়িতে ফিরে অভিভাবকদের কাছে ধর্ষণের ঘটনাটি অবগত করেন। এঘটনায় গৃহবধূ বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ৩ জনকে আসামী করে গত ৩০ নভেম্বর মঙ্গলবার শ্রীবরদী থানা একটি মামলা দায়ের করেন। পুলিশ অভিযান চালিয়ে রাতেই ৩ জনকে আটক করে।
শ্রীবরদী থানা অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আবুল হাশিম বলেন, ভুক্তভোগী গৃহবধূ বাদী হয়ে তিন জনের নাম উল্লেখ সহ অজ্ঞাতনামা এক-দুইজনকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে থানায় মামলা করেছেন। ডাক্তারি পরীক্ষা করার জন্য ভুক্তভোগীকে জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আটককৃত আসামীদের শেরপুর কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে।