বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১২:০৩ অপরাহ্ন

শিরোনাম
বাংলাদেশ উচ্চ বিদ্যালয়ে নবীন বরণ-জিপিএ ৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থী সংবর্ধনা রঙিন ফুলকপি চাষ করে জীবন রাঙাতে চায় ঝিনাইগাতীর শফিকুল  ১নং কেন্দুয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সাইফুল ইসলাম খান সোহেল সফলতার সাথে ইউনিয়নের উন্নয়নমূলক কাজ করে আজ প্রথম বছর পেরিয়ে দ্বিতীয় বছরে পদার্পণ হাজীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে বই বিতরণ কেন্দুয়া বাংলাদেশ উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দিলেন কেন্দুয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সাইফুল ইসলাম খান সোহেল কুটামনি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা নতুন বই পেয়ে উচ্ছ্বসিত কেন্দুয়া বাংলাদেশ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন বই বিতরন বকশীগঞ্জ আ.লীগ সভাপতির বাসায় দূর্ধষ ডাকাতি জামালপুরের মেষ্টা ইউনিয়নে বুদ্ধি প্রতিবন্ধীকে ধর্ষণ, ধর্ষক চাচা গ্রেপ্তার জামালপুরে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ৩২তম বার্ষিক সদস্য সভা অনুষ্ঠিত
শ্রীবরদীতে চাকরীর প্রলোভনে কিশোরীকে পতিতালয়ে বিক্রির অভিযোগ, গ্রেফতার -১

শ্রীবরদীতে চাকরীর প্রলোভনে কিশোরীকে পতিতালয়ে বিক্রির অভিযোগ, গ্রেফতার -১

এজেএম আহছানুজ্জামান ফিরোজ, শ্রীবরদী (শেরপুর) প্রতিনিধি: শ্রীবরদীতে চাকরীর প্রলোভনে এক কিশোরীকে পতিতালয়ে বিক্রির অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার কাকিলাকুড়া ইউনিয়নের গেরামারা চৌরাস্তা বাজার এলাকায়। ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে রঞ্জু মিয়া (২৬) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রঞ্জু মিয়া চেঙ্গুরতাইর গ্রামের আব্দুল বারেক ওরফে দুধা মিয়ার ছেলে। এ ঘটনায় কিশোরীর মা বাদী হয়ে রঞ্জু মিয়াসহ ৩জন এজাহার নামীয় এবং ২/৩ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করে শ্রীবরদী থানায় একটি মামলা করেছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, কিশোরীর পিতার প্রায় দুই বছর পূর্বে মারা যায়। পিতা না থাকায় সংসারে অভাব অনটন লেগে থাকে। কিশোরীর মা চায়ের দোকান করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছে। গত ২৮ মার্চ সংসারে অভাব অনটন নিয়ে কিশোরীর মায়ের সঙ্গে কিশোরীর কথা কাটাকাটি হয়। কিশোরীকে স্বাধীন, রঞ্জু মিয়া ও মুরাদুজ্জামান ওরফে ফুডা মিয়া চাকুরীর কথা বলে ২৮ মার্চ বাড়ি থেকে নিয়ে যায়। পরে ময়মনসিংহ নিয়ে অজ্ঞাতনামা বাড়িতে রেখে চলে আসে। ওই বাড়িতে থাকা একজন মহিলা কিশোরীকে দেহ ব্যবসা করার জন্য চাপ ও প্রলোভন দেখায়। কিশোরী কান্নাকাটি করায় এবং দেহ ব্যবসায় রাজি না হওয়ায় ৩১ মার্চ ওই মহিলা ও কয়েকজন কিশোরীকে শেরপুর গামী সোনার বাংলা বাসে তুলে দেয়। কিশোরী শেরপুর এসে সিএনজি করে শ্রীবরদী এবং পরে অটোরিক্সা করে বাড়িতে আসে। কিশোরীর মা কোথায় গিয়েছিল জিজ্ঞাসা করলে কিশোরী সব বিষয় খুলে বলে। পরে বিষয়টি ধামাচাপা দিতে স্বাধীনের পিতা মুছা সহ এলাকার প্রভাবশালী কয়েকজন কিশোরী ও তার মাকে চাপ সৃষ্টি করে। এক পর্যায়ের ০৭ এপ্রিল রাতে পুলিশ সংবাদ পেয়ে রঞ্জু মিয়াকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসে। এব্যাপারে শ্রীবরদী থানার অফিসার ইনচার্জ মোখলেছুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় কিশোরীর মা বাদী হয়ে মানব পাচার প্রতিরোধ ও দমন আইনের ৮(২)/১১ ধারায় মামলা দায়ের করেছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে রঞ্জু মিয়াকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকী আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply




© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি।
Design & Developed BY SheraWeb.Com