বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৬:৫৩ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম
গজনী অবকাশে মহাআনন্দের ছড়াছড়িতে দৈনিক সত্যের সন্ধানে প্রতিদিন পত্রিকার ১০ম বর্ষে পদার্পণের অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ উচ্চ বিদ্যালয়ে নবীন বরণ-জিপিএ ৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থী সংবর্ধনা রঙিন ফুলকপি চাষ করে জীবন রাঙাতে চায় ঝিনাইগাতীর শফিকুল  ১নং কেন্দুয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সাইফুল ইসলাম খান সোহেল সফলতার সাথে ইউনিয়নের উন্নয়নমূলক কাজ করে আজ প্রথম বছর পেরিয়ে দ্বিতীয় বছরে পদার্পণ হাজীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে বই বিতরণ কেন্দুয়া বাংলাদেশ উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দিলেন কেন্দুয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সাইফুল ইসলাম খান সোহেল কুটামনি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা নতুন বই পেয়ে উচ্ছ্বসিত কেন্দুয়া বাংলাদেশ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন বই বিতরন বকশীগঞ্জ আ.লীগ সভাপতির বাসায় দূর্ধষ ডাকাতি জামালপুরের মেষ্টা ইউনিয়নে বুদ্ধি প্রতিবন্ধীকে ধর্ষণ, ধর্ষক চাচা গ্রেপ্তার
১ মাস পেরিয়ে গেলেও মেষ্টায় চাঞ্চল্যকর স্কুলছাত্রী আত্মহত্যার প্ররোচনা মামলার আসামীরা গ্রেফতার হয়নি কেউ নিরাপত্তাহীনতায় বাদী ও তার পরিবার

১ মাস পেরিয়ে গেলেও মেষ্টায় চাঞ্চল্যকর স্কুলছাত্রী আত্মহত্যার প্ররোচনা মামলার আসামীরা গ্রেফতার হয়নি কেউ নিরাপত্তাহীনতায় বাদী ও তার পরিবার

সৈয়দ মুনিরুল হক নোবেল/ রাশেদুর রহমান রাসেল ॥
জামালপুর সদর উপজেলার মেষ্টা ইউনিয়নের চর মল্লিকপুর গ্রামের সৌদি প্রবাসী জনৈক মোঃ মিজানুর রহমান দুলুর স্কুলপড়–য়া এসএসসি পরীক্ষার্থী মেধাবী ছাত্রী মুক্তি আক্তার রিয়া(১৬)কে প্রেমের ফাঁদে ফেলে আত্মহত্যায় প্ররোচনা মামলার আসামীরা গ্রেফতার হয়নি কেউ। উপরন্তু আসামীদের হুমকিতে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে বাদী ও তার পরিবারের সদস্যরা।
এ বিষয়ে বাদী ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, জামালপুর সদর উপজেলার মেষ্টা ইউনিয়নের চর মল্লিকপুর গ্রামের সৌদি প্রবাসী জনৈক মোঃ মিজানুর রহমান দুলুর মেয়ে মুক্তি আক্তার রিয়া(১৬)কে বিভিন্ন সময় প্রেমের প্রস্তাবসহ বিবাহের প্রস্তাব দিত পাশ^বর্তী সরিষাবাড়ি উপজেলার চরহরিপুর এলাকার মোঃ রিপনের ছেলে মোঃ মিরাজ। রিয়া ও মিরাজ দু’জনেই চান্দেরহাওড়া আলিম উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী হওয়ার সুবাদে এক পর্যায়ে বখাটে মিরাজের পাতা প্রেমের ফাঁদে পা দেয় রিয়া। এদিকে বিষয়টি রিয়ার মা মোছাঃ পারভীন আক্তার জানতে পেরে মিরাজের বাড়িতে বিচার দিলে তারা রিয়াকে সাবালক হওয়ার পর মিরাজের বউ করে ঘরে তুলবে বলে জানায়। কিন্তু কিছুদিন যেতে না যেতেই অজ্ঞাত কারণে হঠাৎ করেই মিরাজের অভিভাবকগণ রিয়াকে মিরাজের সাথে বিয়ে দেওয়ার আশ^াস থেকে সরে আসে। এছাড়াও প্রেমের সম্পর্ককে মেনে নিয়ে মিরাজের সাথে বিয়ে করাতে অস্বীকার করার পাশাপাশি রিয়াকে মিরাজের পরিবারের লোকজন অকথ্য ভাষায় রিয়াকে গালিগালাজ করে বলে যে, তোর সাথে আমাদের ছেলে মিরাজকে কোনদিনও বিয়ে করাবো না। প্রয়োজনে তুই গলায় ফাঁস দিয়ে বা বিষ খেয়ে আত্মহত্যা কর। কিন্তু তারপরও মিরাজ তার ব্যবহৃত মোবাইল নম্বর ০১৮৭৩-৯৯৩৬৩১ থেকে রিয়ারব্যবহৃত মোবাইল নম্বর ০১৭২১-৭৭০৫৮৫ ও ০১৯৯৪-৭৩৯২৮২-তে বিভিন্ন সময় ফোন করে আর এসএমএস’র মাধ্যমে যোগাযোগ করতে থাকে। একপর্যায়ে গত ৪ জুলাই ২০২১ইং তারিখ রোজ বরিবার দিবাগত রাত ৯টায় মিরাজ তার মোবাইল ফোন থেকে রিয়ার মোবাইলে এসএমএস করে তার সাথে দেখা করার জন্য অনুরোধ করে। এদিকে এসএমএস পেয়ে রিয়া রাত সাড়ে ৯টায় প্র¯্রাব করার কথা বলে ঘর থেকে বেরিয়ে যায়। এদিকে রিয়া ঘরে ফিরে না আসায় রিয়ার বাড়ির লোকজন রিয়াকে অনেক খোঁজাখুজি করেও কোথাও পায় নাই। অপরদিকে পরদিন ৫ জুলাই ২০২১ইং তারিখ সোমবার সকাল ৮টার দিকে রিয়ার বাড়ির লোকজন তাদের বসতঘরের দক্ষিণ পাশে চর মল্লিকপুর নূরানী মাদ্রাসার ভিতরে পশ্চিম পাশের কক্ষে ধর্ণার সাথে ওড়না দিয়ে ফাঁস লাটকানো অবস্থায় রিয়ার লাশ দেখতে পায়। এদিকে এ ঘটনা ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে এবং শতশত এলাকাবাসী উৎসুক জনতা সেখানে ভিড় করে। অপরদিকে খবর পেয়ে জামালপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে রিয়ার লাশ নিচে নামায় এবং সুরতহাল রিপোর্ট করে প্রস্তুত করে ময়না তদন্তের জন্য জামালপুর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে।
আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেয়ায় মৃত মুক্তি আক্তার রিয়ার মা মোছাঃ পারভীন আক্তার বাদী হয়ে জামালপুর থানায় ৯-ক/৩০ ধারায় ২০০০ইং সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন সংশোধনী ২০০৩, বিবাহের প্রলোভন দেখিয়ে প্রেমের সম্পর্ক করে সম্ভ্যমহানির ভয় দেখিয়ে প্রত্যক্ষ প্ররোচনায় মৃত্যু ঘটানোসহ উক্ত কাজে প্ররোচনা দানের অপরাধে সরিষাবাড়ি উপজেলার চর হরিপুর গ্রামের জনৈক রিপন মিয়ার ছেলে মোঃ মিরাজ(১৭), হলই মন্ডলের ছেলে মোঃ ছামিউল, মৃত কাশেম মন্ডলের ছেলেরা যথাক্রমে মোঃ দুলাল (৬০), মোঃ ময়না মন্ডল (৫০) ও মোঃ রহমত আলী(৫৫), ময়না মন্ডলের স্ত্রী মোছাঃ সেলিনা পারভীন বেগম(৪৫)সহ অজ্ঞাতনামা আরও ৪/৫ জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন। জামালপুর থানার মামলার নম্বর-৮, তারিখ-৬/৭/২০২১ইং।
এদিকে ঘটনার একটি মাস পেরিয়ে গেলেও অধ্যাবধি পুলিশ কোন আসামীকে গ্রেফতার করতে পারেনি। অপরদিকে আসামীরা বিভিন্ন মাধ্যমে মামলা তুলে নিতে বাদীকে হুমকি দিয়ে যাচ্ছে। আসামীদের হুমকি ধমকিতে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে বাদী ও তার পরিবারের লোকজন। এদিকে আসামীদের দ্রুত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে সম্প্রতি এলাকাবাসী শতশত লোক মানব বন্ধন করে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply




© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি।
Design & Developed BY SheraWeb.Com