বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১২:৩৫ অপরাহ্ন

শিরোনাম
বাংলাদেশ উচ্চ বিদ্যালয়ে নবীন বরণ-জিপিএ ৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থী সংবর্ধনা রঙিন ফুলকপি চাষ করে জীবন রাঙাতে চায় ঝিনাইগাতীর শফিকুল  ১নং কেন্দুয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সাইফুল ইসলাম খান সোহেল সফলতার সাথে ইউনিয়নের উন্নয়নমূলক কাজ করে আজ প্রথম বছর পেরিয়ে দ্বিতীয় বছরে পদার্পণ হাজীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে বই বিতরণ কেন্দুয়া বাংলাদেশ উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দিলেন কেন্দুয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সাইফুল ইসলাম খান সোহেল কুটামনি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা নতুন বই পেয়ে উচ্ছ্বসিত কেন্দুয়া বাংলাদেশ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন বই বিতরন বকশীগঞ্জ আ.লীগ সভাপতির বাসায় দূর্ধষ ডাকাতি জামালপুরের মেষ্টা ইউনিয়নে বুদ্ধি প্রতিবন্ধীকে ধর্ষণ, ধর্ষক চাচা গ্রেপ্তার জামালপুরে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ৩২তম বার্ষিক সদস্য সভা অনুষ্ঠিত
২২ বছর পর রাস্তা উদ্ধার করায় এলাকাবাসীর প্রশংসায় ভাসছেন পৌর মেয়র ছানু

২২ বছর পর রাস্তা উদ্ধার করায় এলাকাবাসীর প্রশংসায় ভাসছেন পৌর মেয়র ছানু

নিজস্ব প্রতিবেদক \
দীর্ঘ ২২ বছর পর স্বপ্নের রাস্তা দিয়ে হেঁটে বেলটিয়া বাজারে যেতে পেরে ৭৬ বছর বয়সী বেলটিয়া এলাকার আনোয়ার হোসেন অনেক খুশি। সেই খুশির ছাপ তার চোখে মুখে। শুধুই কি এই বয়োবৃদ্ধ আনোয়ার হোসেন তা কিন্ত নয়। এমন খুশির জোয়ারে ভাসছে জঙ্গলপাড়া বাজার থেকে বেলটিয়া বাজার পুলিশ লাইন্স এলাকার শত শত মানুষ।
জঙ্গলপাড়া মোড় হইতে বেলটিয়া বাজার পুলিশ লাইন্স মোড় পর্যন্ত দীর্ঘ ২২ বৎসর যাবত চলাচলের রাস্তাটি অবরুদ্ধ করে রেখেছিলেন স্থানীয় প্রভাবশালীরা। পরে জামালপুর পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব মোহাম্মদ ছানোয়ার হোসেন ছানু এর সার্বিক সহযোগিতায় এ রাস্তাটি চলাচলের উপযোগী হয়। স্থানীয়দের নির্বিঘ্নে যাতায়াতের সুবিধা করায় পৌর মেয়র আলহাজ্ব মোহাম্মদ ছানোয়ার হোসেন ছানু কে ধন্যবাদ জানিয়ে একটি আনন্দ মিছিল ও পরে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান জঙ্গলপাড়া থেকে বেলটিয়া বাজার পর্যন্ত রাস্তায় চলাচলকারী এলাকাবাসী।
ফুলেল শুভেচ্ছা জানানোর সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম—সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক সুরুজ্জামান, জামালপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি হাফিজ রায়হান সাদা, কাউন্সিলর মাসুদ করিম, কাউন্সিলর বিজু আহমেদ প্রমূখ।
জঙ্গলপাড়া এলাকার আবুল ইসলাম বলেন, ২২ বছর যাবত এই রাস্তার জন্য বিভিন্ন মহলে গিয়েছি। কিন্ত রাস্তাটি কেউ উদ্ধার করে দেয় নি। সবাই প্রভাবশালীদের পক্ষেই কথা বলেছেন।কিন্ত শেষবারের মত পৌর মেয়রের কাছে এসে জানালে তিনি প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন রাস্তাটি চলাচলের উপযোগী করবেন। পরে সেই প্রতিশ্রম্নতি অনুযায়ী দ্রুত সময়ে আমাদের রাস্তাটি তিনি উদ্ধার করে দিয়েছেন।আমরা এলাকাবাসী অনেক খুশি।
স্থানীয় শামছুন্নাহার নামের একজন জানান, আমার বাবা অসুস্থ থাকাকালীন সময়ে হাসপাতালে নিয়ে যেতে পারিনি। পরে বাবা মারা গেলে সেই লাশটিও হাটু পানি থাকা অবস্থায় রাস্তা দিয়ে বের করে কবরস্থানে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। দীর্ঘদিনের এই রাস্তাটি উদ্ধার করে দেওয়ায় পৌর মেয়র আলহাজ্ব মোহাম্মদ ছানোয়ার হোসেন ছানু কে ধন্যবাদ জানান তিনি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply




© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি।
Design & Developed BY SheraWeb.Com