বুধবার, ০১ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১২:৫৬ অপরাহ্ন

শিরোনাম
বাংলাদেশ উচ্চ বিদ্যালয়ে নবীন বরণ-জিপিএ ৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থী সংবর্ধনা রঙিন ফুলকপি চাষ করে জীবন রাঙাতে চায় ঝিনাইগাতীর শফিকুল  ১নং কেন্দুয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সাইফুল ইসলাম খান সোহেল সফলতার সাথে ইউনিয়নের উন্নয়নমূলক কাজ করে আজ প্রথম বছর পেরিয়ে দ্বিতীয় বছরে পদার্পণ হাজীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে বই বিতরণ কেন্দুয়া বাংলাদেশ উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দিলেন কেন্দুয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সাইফুল ইসলাম খান সোহেল কুটামনি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা নতুন বই পেয়ে উচ্ছ্বসিত কেন্দুয়া বাংলাদেশ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন বই বিতরন বকশীগঞ্জ আ.লীগ সভাপতির বাসায় দূর্ধষ ডাকাতি জামালপুরের মেষ্টা ইউনিয়নে বুদ্ধি প্রতিবন্ধীকে ধর্ষণ, ধর্ষক চাচা গ্রেপ্তার জামালপুরে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ৩২তম বার্ষিক সদস্য সভা অনুষ্ঠিত
সিরাজগঞ্জের মিজানুর রহমান হতে চাই ফুটবলার

সিরাজগঞ্জের মিজানুর রহমান হতে চাই ফুটবলার

মোঃ সাইদুর রহমান সাদী ।।

পৃথিবীতে কেউ সাফল্যের চামচ নিয়ে জন্মলাভ করে না। কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে সবকিছু অর্জন করতে হয়। প্রবাদ আছে, ‘পরিশ্রম সাফল্যের চাবিকাঠি’। পরিশ্রমের দ্বারা ভাগ্যের চাবিকাঠি এমনভাবে পরিবর্তন করা সম্ভব। মানুষ যদি তার লক্ষ্যে অটুট থাকে এবং সেই অনুযায়ী কাজ করে, তবে একদিন সে সাফল্যের চূড়ায় পৌঁছতে পারে। আমাদের চারপাশে অনেক প্রতিভাবান ব্যক্তি দেখতে পাই। পৃথিবীর ইতিহাসে অনেক সফল ব্যক্তির নাম স্বর্ণাক্ষরে লেখা আছে। মানুষ কোনো কাজে প্রথমবারেই সাফলতা লাভ নাও হতে পারে। দীর্ঘদিনের পরিশ্রম বা নিরবচ্ছিন্ন পরিশ্রমের ফলেই ধরা দেয় কাক্সিক্ষত সাফল্য। কোনো কাজে ব্যর্থ হলে তাতে হতাশ না হয়ে সেই কাজে কঠোর মনোনিবেশ করলে সফল হওয়া অবশ্যই সম্ভব। তেমনি সিরাজগঞ্জের সলঙ্গা থানার ধুবিল মেহমানশাহী গ্রামের মোঃ হাফিজুল ইসলামের পুত্র মোঃ মিজানুর রহমান হতে চায় ফুটবলার। ছোটবেলা থেকে তার ফুটবলের প্রতি খুব আগ্রহ। তিনি চেয়েছিলেন ছোটবেলা থেকেই কোন একাডেমি তে ভর্তি হতে কিন্তু মধ্যবিত্ত আর ফুটবলের জন্য পরিবারের কোনো সাপোর্ট নেই বলে তার এই স্বপ্ন সম্পন্ন হয়নি। সে এখন নিজের পরিশ্রমের মাধ্যমে একাডেমির কোন না কোন জায়গায় অংশগ্রহণ করতে চাই।

এ বিষয়ে মিজানুর রহমান আমাদের প্রতিবেদককে বলেন, আমি একজন মধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান আমার এই বিষয়টা হলো অনলাইন থেকে অল্প হলেও ইনকাম করতে পারি এইজন্য নিজেকে হ্যাপিনেস মনে করতে পারি সবসময় আমার জন্য দোয়া করবেন আর সাপোর্ট করে যাবেন ইনশাল্লাহ ভালো কিছু করতে পারবো। ১৭ কোটি মানুষের দেশ ক্রিকেটে যখন ভালো করতে পেরেছে ফুটবলে সেটা কেন করতে পারবে না? শুধু একটু সহানুভূতি এবং সাহায্যের হাত বাড়ালে তরুণ প্রজন্ম পারবে লাল সবুজ পতাকার হয়ে খেলতে বিশ্বকাপ ফুটবল। জীবনে মানুষের জয় হল আসল অলওয়েজ সবসময় দোয়া করবেন ধন্যবাদ সবাইকে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন

Leave a Reply




© এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি।
Design & Developed BY SheraWeb.Com